যেকোনো মুহূর্তে পারমাণবিক যুদ্ধ বাধতে পারে: উ. কোরিয়া

trump-kim

মাথিন ডেস্ক : জাতিসংঘে নিযুক্ত উত্তর কোরিয়ার উপরাষ্ট্রদূত যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে বলেছেন, কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতি এমন অবস্থায় পৌঁছেছে, যেকোনো মুহূর্তে পারমাণবিক যুদ্ধ বেধে যাবে। সোমবার (১৬ অক্টোবর) নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের নিরস্ত্রীকরণ কমিটির সভায় এ কথা বলেন উপরাষ্ট্রদূত কিম ইন রাইয়ং। রাইয়ং বলেন, ১৯৭০ সাল থেকে উত্তর কোরিয়া সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু হামলার হুমকির শিকার হয়ে আসছে। এ কারণে আত্মরক্ষার জন্য পরমাণু অস্ত্র রাখার অধিকার তার দেশের রয়েছে। তিনি মার্কিন সামরিক মহড়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, “আমাদের নেতাকে সরানোর লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিবছর পরমাণু অস্ত্র নিয়ে এখানে মহড়া চালায়।” চলতি বছর উত্তর কোরিয়া শীর্ষ নেতা কিম জং-উন বলেছেন, তিনি পুরোদমে আণবিক বোমা, হাউড্রোজেন বোমা ও আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রসহ সকল প্রকার পারমাণবিক অস্ত্র সংগ্রহে রেখেছেন এবং রাষ্ট্রীয় বাহিনীও প্রস্তুত রয়েছে। রাইয়ং হুশিয়ার করে বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ড আমাদের ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে। যদি তারা আমাদের এক ইঞ্চি ভূমিতে হামলা চালানোর সাহস দেখায়, তাহলে আমাদের কঠোর শাস্তির হাত থেকে বিশ্বের কোথাও গিয়ে বাঁচতে পারবে না।” গত রোববার (১৫ অক্টোবর) যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন জোর দিয়ে বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কূটনৈতিকভাবে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সংঘাত এড়াতে চান।  প্রথম বোমা পড়ার আগে পর্যন্ত এই চেষ্টা চলবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তবে কিম জাতিসংঘের নিরস্ত্রীকরণ কমিটিতে বলেছেন, উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক অস্ত্রের হুমকি মুক্ত পৃথিবী দেখতে চায়। তবে উত্তর কোরিয়া কখনোই এর পারমাণবিক অস্ত্র সমর্পণ করবে না। কিম বলেন, “যুক্তরাষ্ট্র যতদিন পর্যন্ত পিয়ংইয়ংয়ের প্রতি শত্রুতামূলক কার্যকলাপ বন্ধ না করবে ততদিন পর্যন্ত কোনো আলোচনা নয়।”

সূত্র: আল-জাজিরা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*