শাহপরীরদ্বীপের স্বপ্নের বেড়ীবাঁধ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন’

‘আমান উল্লাহ আমান :: অবশেষে শাহপরীরদ্বীপের ভাঙ্গা বেড়ীবাঁধ পুর্নঃনির্মাণের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। এর ফলে দ্বীপবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হওয়ায় হাজার হাজার মানুষের মধ্যে খুশির বন্যা বইছে। টেকনাফ উপজেলার শাহপরীরদ্বীপ এলাকার পোল্ডার নং ৬৮ এর সী ডাইক অংশে প্রতিরক্ষা কাজসহ টেকসই ও মজবুত বাঁধ পূনঃ নির্মানে ১০৬ কোটি টাকার প্রকল্পটি বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে নারায়নগঞ্জের সেনাকান্দা ডর্কইয়ার্ড এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেড বাংলাদেশ নৌ বাহিনী। ১৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় সাবরাং হারিয়াখালীতে উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এ উপলক্ষে জেলা যুবলীগের সহ সভাপতি আবুল কালামের সভাপতিত্বে ও টেকনাফ উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক নুর হোসেনের পরিচালনায় হারিয়াখালী মাঠে এক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবদুর রহমান বদি এমপি বলেন, বেড়ীবাঁধ নির্মাণে কোন প্রকার দূর্নীতি সহ্য করা হবেনা। মাটি নিতে কেউ বাধা সৃষ্টি করলে কঠোরভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বেড়ীবাঁধ জোড়া লাগা মাত্রই সাবরাং-শাহপরীরদ্বীপ সড়কের কাজ চলবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার উন্নয়নে বিশ্বাসী। ভুখন্ড রক্ষা ও মানুষের ভোগান্তি লাঘবে সরকার নিরলসভাবে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় শাহপরীরদ্বীপের বেড়ীবাঁধ পুনঃনির্মাণ কাজ শুরু হচ্ছে। তিনি বলেন, শাহপরীরদ্বীপসহ টেকনাফের বিভিন্ন সীমান্ত পয়েন্ট দিয়ে লক্ষ লক্ষ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করায় বেড়ী বাঁধের মাঠি সরে গেছে। এতে হুমকীর মুখে পড়েছে উপকুলীয় এলাকাগুলো। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, টেকনাফ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাফর আহমদ, জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ শফিক চেয়ারম্যান, কক্সবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী শফিকুর রহমান, টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জহির আহমদ এমএ, শাহপরীরদ্বীপ সাংগঠনিক আওয়ামীলীগের সভাপতি সোনা আলী প্রমুখ। এসময় উপস্থিত ছিলেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হোসেন ছিদ্দীকি, মডেল থানার ওসি (তদন্ত) শেখ আশরাফুজ্জামান। উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালে মহাপ্রলয়ঙ্কারি ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসে ও ২০০৯ সালের প্রাকৃতিক দুর্যোগে (আইলা) ৬৮ পোল্ডারের অনেক স্থান ভেঙে যাওয়াসহ ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ২০১২ সালের জুন মাসে সৃষ্ট নিম্নচাপের ফলে ভারিবর্ষণ এবং তীব্র ঢেউয়ের আঘাতে টেকনাফ শাহপরীরদ্বীপের এ পোল্ডারে সি-ডাইক অংশে প্রায় দুই কিলোমিটার ভেঙ্গে লন্ড ভন্ড হয়ে যায়। ভেঙ্গে যাওয়া অংশ দিয়ে ক্রমাগত সাগরের লোনা পানি পোল্ডারের অভ্যন্তরে প্রবেশ করায় প্রকল্প এলাকায় ফসল, রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি, চিংড়ি চাষসহ লবণ চাষের ক্ষতি হয়েছে। পানির প্রবল চাপে টেকনাফ ও শাহপরীরদ্বীপের একমাত্র সংযোগ সড়কটির অংশবিশেষ ভেঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এ পরিস্থিতিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও জনসাধারণের জোর দাবির মুখে ওই এলাকার সি-ডাইক অংশের বাঁধের ডিজাইন এবং বাস্তবায়ন কাজের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের লক্ষ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড একটি কারিগরি কমিটিও গঠন করে। ওই কারিগরি কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে এ প্রকল্পটি গ্রহণের প্রস্তাব করা হয়েছে। জানা গেছে, ২০১৮ সালে জুন মাসের মধ্যে প্রকল্পটি পুর্ণ সংস্কার করে কাজের পুর্ণ বাস্তবায়ন ও শাহপরীরদ্বীপের প্রায় আড়াই কিলোমিটার (২.৬৪৫ কিমি) পুন:নির্মাণ এবং ঢাল সংরক্ষণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*