নিশ্চিত হয়নি ২৩ হাজার হজযাত্রীর বিমান টিকিট আজ ও কাল ১৪৪ এজেন্সির মালিকের সঙ্গে বৈঠক করবে ধর্ম মন্ত্রণালয়

মাটিন নিউজ ডেক্স:

চলতি বছরের হজযাত্রীদের সৌদি আরব যাওয়ার ফ্লাইট শুরু হয়েছে শনিবার। তবে এখনও বেসরকারি ১৪৪ এজেন্সির ২৩ হাজার হজযাত্রীর বিমান টিকিট নিশ্চিত করা হয়নি। এর মধ্যে ৮৮ এজেন্সির নিবন্ধিত ২১ হাজার ১৭৯ হজযাত্রীর মধ্যে ১০ হাজার ২৪২ এবং ৫৬ এজেন্সির নিবন্ধিত ১২ হাজার ৯৪৯ জনের বিমান (বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন ও সৌদি এরাবিয়ান এয়ারলাইন্স) টিকিটের জন্য পে-অর্ডার নিশ্চিত করেনি বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।টিকিট নিশ্চিত না করার কারণ পর্যালোচনা করতে আজ ও মঙ্গলবার সংশ্লিষ্ট এজেন্সি মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করবে ধর্ম মন্ত্রণালয় কর্তৃপক্ষ। রোববার ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব (হজ) এসএম মনিরুজ্জামান স্বাক্ষরিত আলাদা দুটি বিজ্ঞপ্তিতে এসব সভায় সংশ্লিষ্টদের উপস্থিত হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।সূত্রমতে, এ বছর বাংলাদেশ থেকে হজে যাবেন ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৭৯৮ এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ যাত্রী। এবার ৫২৮ বেসরকারি হজ এজেন্সি হজ কার্যক্রম পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে। বিমান ও সৌদি এরাবিয়ান এয়ারলাইন্স যৌথভাবে এসব হজযাত্রী পরিবহন করবে। ফ্লাইট শিডিউল অনুযায়ী হজযাত্রা নিশ্চিত করতে এবার আগে থেকেই পে-অর্ডার ইস্যু করে বিমান টিকিট কাটার নিয়ম চালু করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

যথাসময়ে বিমান টিকিট কাটার জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশসহ বিভিন্নভাবে তাগাদা দেয় বিমান ও ধর্ম মন্ত্রণালয়। কিন্তু এখনও ১৪৪ এজেন্সির ২৩ হাজার হজযাত্রীর বিমান টিকিটের জন্য পে-অর্ডার ইস্যু না করায় সংশ্লিষ্টদের মাঝে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে যাতে কোনো জটিলতা সৃষ্টি না হয় সেজন্য আগেভাগেই সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। এজন্য নিবন্ধিত হজযাত্রীর একজনেরও টিকিট নিশ্চিত করেনি এরকম ৫৬ এজেন্সি মালিক/মোনাজ্জেমদের সঙ্গে আজ এবং ৫০ জন বা তার চেয়ে বেশি হজযাত্রীর টিকিট নিশ্চিত করেনি এরকম ৮৮ এজেন্সি মালিক/মোনাজ্জেমদের সঙ্গে মঙ্গলবার সচিবালয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সচিব আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে এখনও ১৪৪ এজেন্সির ২৩ হাজার হজযাত্রীর বিমান টিকিট নিশ্চিত না হওয়ার কারণ জানতে চাইলে এজেন্সি মালিকদের সংগঠন-হাবের মহাসচিব এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম আলোকিত বাংলাদেশকে বলেন, পে-অর্ডার ইস্যু না করা এজেন্সির তালিকায় থাকা কয়েকটি এজেন্সি জানিয়েছে তাদের হজযাত্রী এরই মধ্যে চলে গেছে বা টিকিট কেটেছে। তারপরও কেন তালিকায় রয়েছে তা আজ বৈঠকে বসলে বোঝা যাবে। অর্থাৎ মন্ত্রণালয় থেকে যে সংখ্যার কথা বলা হয়েছে বাস্তবে তা ঠিক নাও হতে পারে।

তাছাড়া যেসব এজেন্সির পে-অর্ডার এখনও বাকি রয়েছে তার কারণ হচ্ছে- অনেকেই এখনও সৌদি আরব থেকে ‘বার কোড’ নিয়ে আসতে পারেনি। তারা এ কোড নিয়ে এলেই টিকিট কাটবে। এ নিয়ে জটিলতার কোনো কারণ নেই। এদিকে হজযাত্রীদের ভিসা প্রক্রিয়ার ধীরগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে হাব মহাসচিব বলেন, রোববার পর্যন্ত ৪৫ হাজার হজযাত্রীর ভিসা ইস্যু হয়েছে, যা গেলবারের চেয়ে অনেক বেশি। তাই এবার ভিসা নিয়ে জটিলতার আশঙ্কা দেখছি না।

উল্লেখ্য, দ্বিতীয় দিনে রোববার বিমান ও সৌদিয়ার ১৩ হজ ফ্লাইট কোনো জটিলতা ছাড়ায় সৌদি আরবের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*