জুলাই মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ কোটি ৫৯ লাখ টাকার বেশি রাজস্ব আয়

ফরহাদ আমিন:
টেকনাফ সীমান্ত বানিজ্যে জুলাই মাসে ১৩ কোটি ৪২ লাখ টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। গত মাসে বৈরি আবহাওয়ার মাঝেও মিয়ানমার থেকে পন্য আমদানী স্বাভাবিক থাকায় ব্যাপক রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন বানিজ্য সংশ্লিষ্টরা।
শুল্ক ষ্টেশন সূত্রে জানান, ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের প্রথম জুলাই মাসে ৩৯৭ টি বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে ১৩ কোটি ৪২ লাখ ৩১ হাজার টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। এই ষ্টেশনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্তৃক এই মাসে ৯ কোটি ৮৩ লাখ টাকা লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ কোটি ৫৯ লাখ ৩১ হাজার টাকা বেশি আদায় হয়েছে। এতে মিয়ানমার থেকে ৫৬ কোটি ৩৭ লাখ ৮১ হাজার টাকার পন্য আমদানি করা হয়েছে। এছাড়া শাহপরীরদ্বীপ করিডরে ৬১০৬টি গরু, মহিষ আমদানী করে ৩০ লাখ ৫৩ হাজার টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। গত জুলাই মাসে মিয়ানমার থেকে পন্য আমদানী স্বাভাবিক থাকায় বেশি রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছেন শুল্ক বিভাগ।
অপরদিকে ৩৭টি বিল অব এক্সপোর্টের মাধ্যমে ১ কোটি ৩৩ লাখ ৩ হাজার টাকার পন্য মিয়ানমারে রপ্তানি করা হয়েছে।
এদিকে গতবছরের ২৫ আগষ্টে মিয়ানমার রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা সমস্যার কারনে সীমান্ত বানিজ্যে ধ্বস নেমে ছিল। ওই সময় সীমান্ত বানিজ্যে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। বর্তমানে এই সমস্যা কেটে উঠায় সীমান্ত বানিজ্যে স্বাভাবিকতা ফিরেছে। এ অবস্থা বলবৎ থাকলে সীমান্ত বানিজ্যে রাজস্ব আদায়ে আরো উত্তরন ঘটবে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের।
টেকনাফ স্থল বন্দর শুল্ক কর্মকর্তা মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, গত জুলাই মাসে বৈরি আবহাওয়ার মাঝেও মিয়ানমার থেকে পণ্য আমদানি বেশী হওয়ায় মাসিক টার্গেটের চেয়ে সাড়ে তিন কোটি টাকার রাজস্ব বেশি আদায় করা সম্ভব হয়েছে। তবে পন্য আমদানী ও রপ্তানী স্বাভাবিক থাকলে রাজস্ব আদায়ে আগের অবস্থা ফিরে আসবেন। সীমান্ত বানিজ্য ব্যবসাকে গতিশীল ও স্বাভাবিক অবস্থা বলবৎ রাখতে সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*