ধর্ম ও দর্শন

কক্সবাজার জেলাসহ বাংলাদেশের জেলা ইজতেমা ফায়ছালা’সমূহঃ

জেলা ইজতেমা ফায়ছালা’সমূহঃ ১] খাগড়াছড়ি জেলা। ★ অক্টোবর- ২০১৭ইং__২৬, ২৭ ও ২৮ তারিখ : [বৃহস্পতিবার, শুক্রবার ও শনিবার] _______________________________ ২] চাঁদপুর জেলা, ৩] দিনাজপুর জেলা ও ৪] রাঙ্গামাটি জেলা। ★ নভেম্বরের-২০১৭ইং__৩০, ডিসেম্বরের ১ ও ২ তারিখ : [বৃহস্পতিবার, শুক্রবার ও শনিবার] ________________________________ ৫] মুন্সিগঞ্জ জেলা ৬] কক্সবাজার জেলা। ★ ডিসেম্বর-২০১৭ইং__৭, ৮ ও ৯ তারিখ : [বৃহস্পতিবার, শুক্রবার ও শনিবার] ________________________________ ...

বিস্তারিত »

‘মদিনায় পাওয়া গেলো রহস্যময় ৪০০ দরজা’

মাথিন নিউজ ডেস্ক :: প্রায় ৪০০ রহস্যময় দেয়ালসদৃশ্য বস্তু পাওয়া গেলো সৌদি আরবের মদিনা শহরের উত্তরে হারাত খায়বার অঞ্চলে। সেগুলো নয় হাজার বছরের পুরোনো বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিশেষ আকৃতির কারণে সেগুলোর নাম দেওয়া হয়েছে ‘গেটস’ বা দরজা। যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্বের অধ্যাপক ডেভিড কেনেডি গুগল আর্থের ম্যাপিং সেবা ব্যবহার করে ওই দেয়ালগুলো খুঁজে পেয়েছেন। এ বিষয়ে অধ্যাপক কেনেডি জানান, সৌদি আরবে ...

বিস্তারিত »

ফেইসবুক, ইন্সটাগ্রামে ছবি পোস্ট ‘হারাম’!!!

সোশাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করাকে ‘ইসলাম বিরোধী’ আখ্যা দিয়ে এর বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছে ভারতের ইসলামি সংগঠন দারুল উলুম। উত্তর প্রদেশের দেওবন্দ ভিত্তিক এই প্রতিষ্ঠানটির শাখা দারুল ইফতা থেকে জারি হয়েছে এই ফতোয়া। এই ফতোয়া অনুযায়ী, নারী বা পুরুষ- কেউই ফেইসবুক, টুইটার বা ইন্সটাগ্রামে ছবি পোস্ট করলে তা হারাম বলে পরিগণিত হবে। দারুল উলুম বলছে, কিছুদিন আগে এক ব্যক্তি চিঠি ...

বিস্তারিত »

মুসলিম বা খ্রিস্টান বলে কোনো সন্ত্রাসী নেই: দালাইলামা

মুসলিম কিংবা খ্রিস্টান বলে কোনো সন্ত্রাসী নেই। কারণ সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়াদের কোনো ধর্ম থাকে না। ভারতের মণিপুর রাজ্যের ইম্ফলে এক গণঅভ্যর্থনা সভায় তিব্বতের আধ্যাত্মিক ধর্মীয় গুরু দালাইলামা এ মন্তব্য করেন। খবর- এনডিটিভির। মঙ্গলবার তিনদিনের সফরে মণিপুর যাওয়ার একদিন পর ৮২ বছর বয়সী দালাইলামা এ মন্তব্য করেন। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ২৫ আগস্টের পর থেকে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর যে নির্যাতন ...

বিস্তারিত »

ধর্ষণের দিকে আঙুল ওঠায়, ঘ্যাঁচ করে নিজের পুরুষাঙ্গটাই কেটে ফেললেন ‘সাধু’!

মাথিন ডেস্ক:::::::: চরিত্রের দিকে আঙুল ওঠায়, ঘ্যাঁচ করে নিজের পুরুষাঙ্গটাই কেটে ফেললেন ‘সাধু’! না থাকবে বাঁশ, না বাজবে বাঁশি। পুরুষাঙ্গকে ‘শাস্তি’ দিতে গিয়ে, নিজের জীবনকেই তিনি বিপন্ন করে তুলেছেন। যুঝছেন মৃত্যুর সঙ্গে। ভারতের রাজস্থানের চুরু জেলার বছর বত্রিশের ওই সাধুর বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে, এক মহিলার সঙ্গে তিনি বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছেন। এই সম্পর্ক নিয়ে আশ্রমে কানাঘুঁষো শুরু হওয়ায়, বিব্রতই ছিলেন তিনি। ...

বিস্তারিত »

বিশ্ব ইজতেমা শুরু ১২ জানুয়ারি

আগামী বছরের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব হবে ১২ থেকে ১৪ জানুয়ারি আর দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা ১৯ থেকে ২১ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। নিরাপত্তার জন্য যা যা প্রয়োজন বিশ্ব ইজতেমা মাঠে তা রাখা হবে বলে জানান মন্ত্রী। টঙ্গীতে বিশ্ব এজতেমার নিরাপত্তা ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে সোমবার সচিবালয়ে আয়োজিত বৈঠক শেষে মন্ত্রী এ কথা জানান। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ...

বিস্তারিত »

সবচেয়ে বড় সাত কোরআন শরিফ

৭০০ মিটার দীর্ঘ, ৩৮১ মিটার উচ্চ মিসরীয় শিল্পী সাদ মোহাম্মদ হাত দিয়ে প্রায় ৭০০ মিটার (দুই হাজার দুইশত ৯৬ ফিট) দীর্ঘ একটি কোরআন শরীফ লিখেছেন। তিন বছর ধরে অনেক পরিশ্রমের তিনি কাজটি শেষ করেছেন। যখন এটি খোলা অবস্থায় রাখা হয়, তখন তার আয়তন ৩৮১ মিটার উচ্চতা সম্পন্ন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ের দ্বিগুণ হবে। নকশা করা কাঠের তৈরি বাক্সের ভেতর পরম ...

বিস্তারিত »

সবচেয়ে ক্ষুদ্র ছয় কোরআন শরিফ

মাথিন ডেস্ক::::::::::::: দৈর্ঘ্য ২.৫৪ সেন্টিমিটার বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষুদ্র আকারের পবিত্র কোরআন গ্রন্থের সন্ধান মিলেছে বাংলাদেশে। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমেই গ্রন্থটির সন্ধান মিলেছে। ২৫৭ পৃষ্টার এই কোরআনের দৈর্ঘ্য মাত্র ১ ইঞ্চি, অর্থাৎ ২ দশমিক ৫৪ সেন্টিমিটার। প্রস্থ দশমিক ৭৫ ইঞ্চি, উচ্চতা দশমিক ৭ মিলিমিটার এবং ওজন মাত্র ২ দশমিক ৩৮ গ্রাম। কোরআনের এ কপিটি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। রাজধানী উত্তর মুগদা ...

বিস্তারিত »

জান্নাতের নেওয়ার জন্য আল্লাহ মুমিনদের কি করবেন ?

ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর = আল্লাহ মুমিনদের জান্নাতে নেওয়ার জন্য অবশ্যই পরীক্ষা করবেন। পরীক্ষা ছাড়া আল্লাহ কোন বান্দাকে জান্নাতে নিবেন না। আর বান্দার পরীক্ষা ছাড়া এমনিতেই জান্নাতে যাওয়ার আশা করা বাতুলতা ছাড়া কিছুই নয়। এ সম্পর্কে সূরা আনকাবুত 2-3 নং আয়াতে মহান আল্লাহর পরিষ্কার ভাবে বলে দিয়েছেন- أَحَسِبَ النَّاسُ أَن يُتْرَكُوا أَن يَقُولُوا آمَنَّا وَهُمْ لَا يُفْتَنُونَ ২) ...

বিস্তারিত »

ইসলামীক বিধান মতে শিশুর মাতৃদুগ্ধ পানের গুরুত্ব ও সময়সীমা 

  ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর = শিশুর মস্তিষ্ক ও মানসিক বিকাশের জন্য মায়ের বুকের দুধের কোন বিকল্প নেই। শিশু জন্মের পর হতে কমপক্ষে ৬ মাস বুকের দুধ খাওয়ানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা; যা শিশুরস্বাস্থ্য ভালো রাখতে বিরাট ভূমিকা পালন করে। এ ছাড়া শিশুর বুকের দুধ খাওয়ানো শুধু শিশুর জন্যই উপকারী নয়, এটি মায়ের জন্যও বেশ জরুরি। এর ফলে মায়ের সঙ্গে শিশুর মানসিক সংযুক্তি তৈরি হয়। সেইসঙ্গেমায়ের স্বাস্থ্যও ভালো থাকে। শিশু গর্ভাবস্থা থেকে শুরু করে প্রথম ২ বছর অর্থাৎ এই এক হাজার দিন সঠিক পুষ্টি নিশ্চিত করার মাধ্যমেই তার ভবিষ্যৎ মেধা, বুদ্ধি, আবেগীয় ও সামাজিক, বিকাশ নিশ্চিত হয়। দুধপানে উদ্বুদ্ধকরতে মহানবী (সঃ) বলেন স্তন্যদানকারী ও গর্ভবর্তী মহিলা থেকে রমজানের রোজা রাখার বাধ্যবাধকতা উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। (আবু দাউদ, তিরমিজি, নাসাঈ ও মিশকাত) তাই শিশুর বুকের দুধ খাওয়ানোর ব্যাপারেপ্রতিটি মায়ের সচেতন হওয়া দরকার। >>>কুরআনের আলোকে মাতৃদুগ্ধ পান করার সময়সীমা<<< ******************************** শিশু মায়ের বুকের দুধ কতবছর পর্যন্ত পান করবে তা আল্লাহ তায়ালা সুস্পষ্ট বর্ণনা করেছেন। এখানে আল্লাহ তা‘আলা শিশুর জননীদেরকে লক্ষ্য করে বলেন যে, যে পিতা তার সন্তানের দুধ পানের সময়-কাল পূর্ণ করতে চায়, সে ক্ষেত্রে মায়েরা পুরো দু’বছর নিজেদের সন্তানদের দুধ পান করাবে। বাকারা ২৩৩ এখানে তিনি শিশুদেরকে দুধ পান করানোর পূর্ণ সময় বলে দিচ্ছেন দু’বছর। আবারঅন্যত্র সূরা লুকমানে ১৪ নং আয়াতে মহান আল্লাহ বলেন- আর ২২ প্রকৃতপক্ষে আমি মানুষকে তার পিতা-মাতার হক চিনে নেবার জন্য নিজেই তাকিদ করেছি৷ তার মা দুর্বলতা সহ্য করে তাকে নিজের গর্ভে ধারণ করে এবং দু’বছর লাগে তার দুধ ছাড়তে ৷ ইমাম শাফে’ঈ (র), ইমাম আহমাদ (র), ইমাম আবু ইউসুফ (র) ও ইমাম মুহাম্মাদ (র) এ অর্থ গ্রহণ করেছেন যে, শিশুর দুধ পান করার মেয়াদ ২ বছরে পূর্ণ হয়ে যায়৷ এ মেয়াদকালে কোন শিশু যদি কোন স্ত্রীলোকের দুধপান করে তাহলে দুধ পানকরার “হুরমাত” (অর্থাৎ দুধপান করার কারণে স্ত্রীলোকটি তার মায়ের মর্যাদায় উন্নীত হয়ে যাওয়া এবং তার জন্য তার সাথে বিবাহ হারাম হয়ে যাওয়া ) প্রমাণিত হয়ে যাবে৷ অন্যথায় পরবর্তীকালে কোন প্রকার দুধ পান করার ফলে কোন”হুরমাত” প্রতিষ্ঠিত হবে না৷ এ উক্তির স্বপক্ষে ইমাম মালেকেরও একটি বর্ণনা রয়েছে৷ কিন্তু ইমাম আবু হানীফা (র) অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করার উদ্দেশ্যে এ মেয়াদকে বাড়িয়ে আড়াই বছর করার অভিমত ব্যক্ত করেন৷ এই সঙ্গে ইমামসাহেব একথাও বলেন, যদি দু’বছর বা এর চেয়ে কম সময়ে শিশুর দুধ ছাড়িয়ে দেয়া হয় এবং খাদ্যের ব্যাপারে শিশু কেবল দুধের ওপর নির্ভরশীল না থাকে, তাহলে এরপর কোন স্ত্রীলোকের দুধ পান করার ফলে কোন দুধপান জনিত হুরমাতপ্রমাণিত হবে না৷ তবে যদি শিশুর আসল খাদ্য দুধই হয়ে থাকে তাহলে অন্যান্য খাদ্য কম বেশি কিছু খেয়ে নিলেও এ সময়ের মধ্যে দুধ পানের কারণে হুরমাত প্রমাণিত হয়ে যাবে৷ কারণ শিশুকে অপরিহার্যভাবে দু’বছরেই দুধপান করাতে হবে, তবে দুই বছর পরে দু’টি শিশু একত্রে দুধ পান করলে তারা তাদের পরস্পরের দুধ ভাই বা দুধ বোন হওয়া সাব্যস্ত হবে না। সুতরাং তাদের মধ্যেবিয়ে হারাম হবে না। অধিকাংশ ইমামের এটাই মাযহাব। জামেউত তিরমিযীতে এই অধ্যায় রয়েছেঃ ‘যে দুধ পান দ্বারা (বিয়ের) নিষিদ্ধতা সাব্যাস্ত হয় তা এই দু’বছরের পূর্বেই।’ (তিরমিযী ৪/৩১৩) অতঃপর হাদীস আনা হয়েছে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘ঐ দুধ পান দ্বারাই নিষিদ্ধতা (পরস্পরের বিয়েরনিষিদ্ধতা) সাব্যাস্ত হয়ে থাকে যে দুগ্ধ পাকস্থলীকে পূর্ণ করে দেয় অর্ধাৎ যে দুধ খেলে পেট ভরে যায় এবং তা দুধ ছাড়ার পূর্বে হয়।’ এই হাদীসটি হাসান সহীহ। অধিকাংশ জ্ঞানী, সাহাবীগণ (রাঃ) প্রমুখের এর উপরই আমল রয়েছে যে, দু’বছরেরপূর্বের দুধ পানই বিয়ে হারাম করে থাকে। এর পরের সময়ের দুগ্ধ পান বিয়ে হারাম করে না। অতএব সর্বসম্মতিক্রমে শিশুকে ২ বছর থেকে আড়াই বছর পর্যন্ত দুধ পান করানো যাবে। লেখকঃ সভাপতি, ইসলাম প্রচার পরিষদ, খুলনা মহানগরী চেয়ারম্যান খুলনা কম্পিউটার ট্রেনিং এন্ড ডিজাইন হাউজ খুলনা হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্র ০১৯১৩-৩৩৩২৩১

বিস্তারিত »